মঙ্গলবার, 27 সেপ্টেম্বর 2016 16:28

খুবিতে উড়ল কৃষিক্ষেত্রে ব্যবহার উপযোগী ড্রোন

দৈনিক ইত্তেফাক || খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) ইলেকট্রোনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং ডিসিপ্লিন উদ্যোগে কৃষিক্ষেত্রে ব্যবহার উপযোগী ড্রোনের সফলভাবে উড্ডয়ন হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় খেলার মাঠে গতকাল সোমবার দুপুরে পরীক্ষামূলকভাবে এ ড্রোন উড্ডয়ন করা হয়। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রকল্পের আওতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রোনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং ডিসিপ্লিনের পক্ষ থেকে এই ড্রোনটি তৈরি করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রোনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং ডিসিপ্লিনের ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক ড.  মো. শামীম আহসানের তত্ত্বাবধানে একই ডিসিপ্লিনের মাস্টার্সের ছাত্র কাজী মাহমুদ হাসান এই ড্রোনটি তৈরি করেছেন। এটি প্রাথমিকভাবে  ৮০ ফুট উঁচু দিয়ে উড্ডয়ন করে। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে ড্রোনটি কীভাবে কৃষি জমিতে কীটনাশক ছিটাবে তা দেখানো হয়। এ ছাড়া উঁচুতে আম গাছে বা অন্যান্য ফলজগাছেও প্রয়োজনে কীটনাশক ছিটাতে পারবে।

 ড. মো. শামীম আহসান বলেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমতি নিয়ে ড্রোনটি তৈরি ও উড্ডয়ন করা হয়েছে। ড্রোনের গতি ঘণ্টায় ৩৮ কিলোমিটার। প্রতি মিনিটে পাঁচ কাঠা জমিতে কীটনাশক ছিটাতে পারবে এ  ড্রোন।  ড্রোনের বিবরণ সম্পর্কে প্রধান তত্ত্বাবধায়ক বলেন, অটোনমাস মাল্টি-ফাংশনাল  ড্রোন এটি।  ড্রোনটি কীটনাশক  স্প্রে, মনিটরিং/সারভেইল্যান্স, আবহাওয়া সংশ্লিষ্ট তথ্য সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যাবে। এ ছাড়া এতে উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন রোটেড ক্যামেরা সংযুক্ত করা সম্ভব হবে। তিনি আরো জানান, ৫  কেজি ওজনের ড্রোনটি একবারে ২৫ মিনিট উড়তে পারবে। এর সর্বোচ্চ উড্ডয়ন উচ্চতা ২০০ মিটার, যা ৩ লিটার কীটনাশক বহনে সক্ষম। এ ছাড়া কৃষির অন্যান্য আরও কাজে কীভাবে ব্যবহার করা যাবে সে বিষয়ও ভেবে  দেখা হচ্ছে।  খুব শীঘ্রই এটির আনুষ্ঠানিক উড্ডয়ন উদ্বোধন করা হবে বলে জানান প্রকল্পের তত্ত্বাবধায়ক। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান প্রকল্পের গবেষকদের এ সাফল্যে শুভেচ্ছা জানান।