রবিবার, 27 অক্টোবর 2013 11:04

নাজিরপুরে খাসজমি ব্যক্তির নামে রেকর্ড

প্রথম আলো ।। পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার শেখ মাটিয়া ইউনিয়নের রামনগর মৌজার সোয়া তিন একর (৩২৫ শতক) খাসজমি ৩০ ব্যক্তির নামে রেকর্ড করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শেখ মাটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সাবেক চেয়ারম্যান আতিয়ার রহমান চৌধুরী জানান, নাজিরপুর উপজেলা সেটেলমেন্ট কার্যালয়ের কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্থানীয় কিছু দালাল টাকার বিনিময়ে ১ নম্বর খাস খতিয়ানের এসব জমি ব্যক্তির নামে রেকর্ড করতে সহায়তা করেছেন। নাজিরপুরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মৃণাল কান্তি বলেন, ওই সব জমি ১ নম্বর খাস খতিয়ানের—এ কথা জানার পর তা অবমুক্তির জন্য বরিশালে জোনাল সেটেলমেন্ট কার্যালয়ে লিখিতভাবে আবেদন করা হয়েছে।
সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শেখ মাটিয়া ইউনিয়নের রামনগর এলাকার কালিপদ হালদার, মোজাম্মেল শেখ, মোশারেফ হোসেন ও তাঁর স্ত্রী আউলিয়া বেগম; আমতলা এলাকার বিমল কৃষ্ণ হালদার, আবদুর রহমান সিকদার ও তাঁর স্ত্রী শানু বিবি এবং বুইচাকাঠি এলাকার আবদুল জলিল সরদার ও তাঁর স্ত্রী জরিনা বেগমসহ ৩০ জনের নামে এই জমি রেকর্ড হয়েছে। এ ব্যাপারে কালিপদ হালদার, মোশারেফ হোসেনসহ পাঁচজনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তাঁরা কেউ কথা বলতে রাজি হননি।
তবে শেখ মাটিয়া ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা সুব্রত শেখর জানান, মাঠ জরিপের সময় সেটেলমেন্ট কার্যালয়ের কর্মচারীরা এসব জমি ওই ব্যক্তিদের নামে রেকর্ড করেছেন। নাজিরপুর উপজেলা সহকারী সেটেলমেন্ট কর্মকর্তা আতাহার উদ্দিন আহমাদ বলেন, ‘খাসজমি ব্যক্তিমালিকানায় রেকর্ড হয়েছে কি না, তা আমার জানা নেই। তবে হয়ে থাকলে জমিগুলো সরকারকে ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।’