মঙ্গলবার, 04 অক্টোবর 2016 15:54

বিনা সেচে ধান চাষ

সমকাল || রংপুর অঞ্চলে প্রায় সাড়ে ৪ লাখ হেক্টর জমিতে আমন ধান বিনা সেচে আবাদ হয়েছে। ফলে কৃষকদের প্রায় সোয়া ২শ' কোটি টাকা আর্থিক সাশ্রয় হয়েছে। এ বছর স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত ও আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় সেচ না লাগায় এত বিপুল পরিমাণ টাকা সাশ্রয় হয়েছে। এবার কৃষকরা ধান আবাদে লোকসান পুষিয়ে নিতে পারবেন। জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহ থেকে আমানের আবাদ শুরু হয়েছে। অক্টোবরের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে পুরোদমে ধান কাটা মাড়াই শুরু হবে। রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, রংপুর, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, নীলফামারী ও গাইবান্ধা জেলায় এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১২ শতাংশ বেশি জমিতে আমনের আবাদ হয়েছে। এবার ৫ জেলায় ৫ লাখ ৮৫ হাজার ৬১৩ হেক্টর জমিতে আমনের আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে রংপুরে ১ লাখ ৬৩ হাজার ৭১৫ হেক্টর, গাইবান্ধায় ১ লাখ ২৪ হাজার ১০৫ হেক্টর, কুড়িগ্রামে ১ লাখ ৭৫০ হেক্টর, লালমনিরহাটে ৮৪ হাজার ৮৪৮ হেক্টর এবং নীলফামারীতে ১ লাখ ১২ হাজার ১৯৫ হেক্টর। এসব জমি থেকে ১৪ লাখ টনের বেশি ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। কৃষি অফিসের তথ্যমতে, আবহাওয়া ধান চাষের অনুকূলে থাকায় এবার ৫ লাখ ৮৫ হাজার ৬১৩ হেক্টর জমির মধ্যে মাত্র ১ লাখ ১৮ হাজার ৭৯৪ হেক্টর জমিতে কৃষকরা সেচ দিয়ে আবাদ করেছেন। বাকি ৪ লাখ ৬৭ হাজার ১১৯ হেক্টর জমিতে সেচ দিতে হয়নি। রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্ভিদ বিশেষজ্ঞ মেজবাহুল ইসলাম জানান, আমন ধান সাধারণত বৃষ্টি ও প্রকৃতিনির্ভর ধান। প্রতিকূল পরিবেশ থাকায় এবার আমনের বাম্পার ফলন হয়েছে। কৃষকদের সেচ বাবদ বাড়তি খরচ বইতে হয়নি।

এই ক্যাটেগরিতে অন্তর্ভুক্ত: « তুলা চাষে দিনবদলের স্বপ্ন