বুধবার, 08 জুলাই 2015 11:25

খালিয়াজুরীর সরকারি গুদামে ধান সংগ্রহে অনিয়ম!

ইত্তেফাক ।। নেত্রকোনার খালিয়াজুরী সরকারি খাদ্য গুদামে ধান সংগ্রহ অভিযানে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল সোমবার খালিয়াজুরী সদরের কৃষক মো. আবদুল জলিলসহ ৫৬ জন কৃষক স্থানীয় ইউএনও বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন।
অভিযোগে জানা যায়, স্থানীয় কিছু ব্যবসায়ী ও দালাল খাদ্য গুদামের কর্মকর্তাদের যোগসাজসে রাতের আঁধারে গুদামে ধান সংগ্রহ করছে। এতে প্রকৃত কৃষকরা সরকারি গুদামে ধান বিক্রি থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। গত ৪ জুন থেকে খালিয়াজুরী গুদামে ধান সংগ্রহ অভিযানের উদ্বোধন হয়। উদ্বোধনের পরপরই ধান দেয়া নিয়ে স্থানীয় কিছু প্রভাবশালীর সাথে গুদাম কর্তৃপক্ষের সমস্যা দেখা দেয়। প্রভাবশালীরা ধান নেয়ার জন্য গুদাম কর্তৃপক্ষের ওপর চাপ সৃষ্টি করে এবং হুমকি ধমকি দেয়। এতে করে প্রায় এক মাস ধান কেনা বন্ধ থাকে। গত ২ জুলাই আবারো ধান কেনা শুরু হয়। কিন্তু প্রকৃত কৃষকরা গুদামে ধান সরবরাহ করতে পারছে না। এলাকার কিছু ব্যবসায়ী ও দালাল কৃষকের নামে রাতের আঁধারে গুদামে ধান সরবরাহ করছে। খাদ্য গুদাম সূত্রে জানা গেছে, সরকারিভাবে এবার প্রতি মণ ধানের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৮৮০ টাকা। খালিয়াজুরী খাদ্য গুদামে ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৪১৪ মেট্রিক টন। এরই মধ্যে প্রায় ১২০ মেট্রিক টন ধান সংগ্রহ করা হয়েছে।
খালিয়াজুরী খাদ্য গুদামের উপ-পরিদর্শক খন্দকার মো. ইলিয়াস কাঞ্চন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, অভিযোগটি সঠিক নয়। কৃষি কার্ডের মাধ্যমে প্রকৃত কৃষকদের কাছ থেকে সরকার নির্ধারিত মূল্যে ধান সংগ্রহ করছে। খালিয়াজুরী ইউএনও বদরুল হাসান লিটন বলেন, খাদ্য গুদামে ধান সরবরাহকারীর সংখ্যা অনেক বেশি। সকলেই তাদের ধান সরবরাহ করতে পারছে না। অভিযোগের বিষয়টি যাছাই করে দেখা হবে।