রবিবার, 19 নভেম্বর 2017 12:15

হুইট ব্লাস্ট প্রতিরোধে পশ্চিমের পাঁচ জেলায় গম চাষ বন্ধ

দৈনিক ইত্তেফাক || হুইট ব্লাস্ট প্রতিরোধে পশ্চিমের পাঁচ জেলায় এ বছরও গম চাষ বন্ধ  রাখতে বলছে সরকার। জেলাগুলো হচ্ছে কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, ঝিনাইদহ ও যশোর। বিএডিসি এসব জেলায় গম বীজ বিক্রিও বন্ধ রেখেছে। দেশের অন্যতম প্রধান গম উত্পাদনকারী এলাকা হচ্ছে উল্লেখিত পাঁচ জেলা। ২০১৫ সালে পশ্চিমের পাঁচ জেলায় গম ক্ষেতে হুইট ব্লাস্ট রোগের আক্রমণ হয়। আর সেটাই ছিল দেশে গম ক্ষেতে ব্লাস্টের প্রথম আক্রমণ। এর আগে ব্রাজিলে গম ক্ষেতে ব্লাস্টের আক্রমণ হয়েছিল বলে জানা গেছে। ব্লাস্ট গমের মারাত্মক রোগ। ওই বছর পশ্চিমের জেলাগুলোতে প্রায় ১২ হাজার হেক্টর জমিতে হুইট ব্লাস্টের আক্রমণ হয়েছিল। এমনকি বিএডিসির গম বীজ উত্পাদনকারী ফার্ম ঝিনাইদহ জেলার দত্তনগর, চুয়াডাঙ্গার নুর নগর ও মেহেরপুরের বারাদীতে গম ক্ষেত হুইট ব্লাস্টে আক্রান্ত হয়েছিল। বিএডিসির খামারগুলোর সব গম ক্ষেত পুড়িয়ে ফেলা হয়েছিল। কিন্তু চাষিরা আক্রান্ত গম ক্ষেতের সঙ্গে ভালো ক্ষেতের গম কেটে বাড়ি নিয়ে যায়। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর পরপর তিন বছর এসব জেলায় চাষিদের গম চাষ নিষেধ করে।  বিএডিসিও গম বীজ বিক্রিও বন্ধ রাখে।  এরপরও চাষিরা নিজেদের ঘরে রাখা বীজ দিয়ে গম চাষ করে।

যশোর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আঞ্চলিক অফিস সূত্রে জানা গেছে, নিষেধ অমান্য করে গত বছর ১৮ হাজার ৪শ’ চার হেক্টরে গম চাষ করেন চাষিরা। এরমধ্যে ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুর জেলায় ২০ হেক্টরে হুইট ব্লাস্টের আক্রমণ হয়েছিল। তবে গত বছর গমের ফলন ভালো হয়েছিল। বিএডিসির যশোর অঞ্চলের উপ-পরিচালক  মোঃ রোকনুজ্জামান বলেন, সরকারের সিদ্ধান্ত মতো পাঁচ জেলায় গম বীজ বিক্রি বন্ধ রাখা হয়েছে। ডিলারদেরকে গম বীজ দেয়া হয়নি। যশোর, ঝিনাইদহ, কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুর জেলার সঙ্গে পাবনা জেলায়ও গম বীজ বিক্রি করা হচ্ছে না বলে তিনি জানান।

এই ক্যাটেগরিতে অন্তর্ভুক্ত: « এক দশকে বোরোর উৎপাদন সর্বনিম্ন?